NEWS UPDATE

স্থগিত হতে পারে পঞ্চায়েত ভোট,তাহলে কি রাষ্ট্রপতি শাসন হবে

স্থগিত হতে পারে পঞ্চায়েত ভোট,তাহলে কি রাষ্ট্রপতি শাসন হবে

স্থগিত হতে পারে পঞ্চায়েত ভোট,তাহলে কি রাষ্ট্রপতি শাসন হবে
স্থগিত হতে পারে পঞ্চায়েত ভোট,তাহলে কি রাষ্ট্রপতি শাসন হবে

Sarkari Chakri:-

নমস্কার বন্ধুরা –

খুব শীঘ্রই হতে চলেছে পঞ্চায়েত ভোট যার কারণে ভোট প্রচার করছে প্রত্যেকটি পার্টি একদম জোর কদমে। ইলেকশন কমিশন ও ভোটের জন্য একদম তৈরি হয়ে গেছে। ঠিক এমন সময় শোনা যাচ্ছে নাকি পঞ্চায়েত ভোট কিছুদিনের জন্য স্থগিত হতে পারে, রাজ্যে শুরু হতে পারে রাষ্ট্রপতি শাসন। কিছুদিনের মধ্যেই যে পঞ্চায়েত ভোট হতে চলেছে, সেটা ঘোষণা হওয়ার পর থেকে প্রায়ই দেখা যাচ্ছে এই নানারকম খারাপ, বিনাশকারি কর্মকান্ড।

যেমন ধরুন কখনো কখনো ভোট কে কেন্দ্র করে বিভিন্ন জায়গায় দাঙ্গা-হাঙ্গামা, মারামারি দেখা যাচ্ছে যার ফলে প্রাণ চলে যাচ্ছে অনেক মানুষের। কখনো কখনো দেখা যাচ্ছে রাজনৈতিক বিভিন্ন বড় ব্যক্তির বাড়িতে কে পাওয়া যাচ্ছে নানা রকম দুষ্কৃতিমূলক জিনিসপত্র। কখনো বা পাওয়া যাচ্ছে নানা রকম বোমের খোঁজ। যার ফলে সাধারণ মানুষ মনে করছে এই ভোট কি আদৌ সুরক্ষিত।






 

এইসব কারণের জন্যই কোন এক অজ্ঞাত পরিচয় আইনজীবী এবার কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করে দাবি করে যে, কোনমতেই এখন এই পঞ্চায়েত ভোট করা যাবেনা ও রাজ্যে আনতে হবে রাষ্ট্রপতি শাসন। তার মতে এ রাজ্যে এখন চলছে খুব দুরব্যবস্থা, এমন অবস্থায় কোনোমতেই ভোট গ্রহণ বর্তমানে সম্ভব নয়। তিনি একথা বলেছেন যে, এই যে ইলেকশন কমিশন তিনি নাকি রাজ্যের মানসিকতা ভাবছেন না।

পঞ্চায়েত ভোট এই কারণে বন্ধ হচ্ছে কিনা তার জন্য প্রশ্ন হচ্ছে অধিক? কিন্তু সাধারণ জনগণ মনে করছে যে ভোট আসতে আর খুব বেশি সময় নেই। ভোটে প্রস্তুতিও একদম জোর কদমে চলছে এমন অবস্থায় ভোট স্থগিত করা একটা মস্ত বড় বোকামির কাজ হবে। এই সময় যদি ভোট স্থগিত করে দেওয়া হয় তাহলে রাজ্যসহ ইলেকশন কমিশন ও অন্যান্য সব রকম রাজনৈতিক পার্টির একটা বড় পরিমাণের অর্থনৈতিক ক্ষতি হতে পারে। ভোটের সময় এই ঝামেলা কোন নতুন ব্যাপার না কেননা বিগত প্রত্যেকটি ইলেকশনে দেখা গেছে কোনো না কোনো জায়গায় ঝামেলা হতেই আছে। তার জন্য ভোট বন্ধ করে দেওয়া কোন মানেই হয় না বলে মনে করেছেন অনেকেই। 



কলকাতা হাইকোর্টের মামলা :- 

এই অজ্ঞাত পরিচয়ের আইনজীবীর মামলা কিন্তু কলকাতা হাইকোর্ট গ্রহণ করেছে। যদিও এই বিষয়ে কোনো রকম রায় প্রকাশ করেনি এখনো পর্যন্ত আদালত। ইতিমধ্যেই পঞ্চায়েত ভোট এর আর খুব বেশি সময় বাকি না থাকায় রাজনৈতিক বহু পার্টি যদি ক্ষমতায় আসে তাহলে তারা নানারকম সুযোগ সুবিধা করে দেবেন এই বলে আশ্বাস দিচ্ছে সাধারণ জনগণকে। এছাড়াও যারা ক্ষমতায় রয়েছেন তারাও এই সময় সাধারণ জনগণে বিশ্বাস পাওয়ার জন্য নানারকম বিশেষ সুযোগ সুবিধা প্রদান করছে। এটি নিজের দলের পক্ষে ভোট টাকে টেনে নেওয়ার একটা নতুন প্রক্রিয়া বলে অনেকের দাবি করেছেন। এই সামনের পঞ্চায়েত ভোট আদৌ স্থগিত হবে কিনা এবং এরা যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হবে কি না অথবা ভোটের যেসব পুরনো নিয়ম কানুন রয়েছে সেগুলো এবং ভোটের তারিখের কোনরকম বদল হবে কিনা সেটা নির্ভর করছে শুধুমাত্র কলকাতা হাইকোর্টের রায়ের উপর

Written by :- Blogger Sujoy Mondal

Sarkarichakri.co.in আমরা কোন নিয়োগ সংস্থা নয় সরকারি এবং বেসরকারি চাকরির ওয়েবসাইট গুলিতে যে সমস্ত চাকরির খবরের আপডেট দেয় সেগুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরাই আমাদের দায়িত্ব তাই আমাদের বিজ্ঞপ্তি পড়ার পর চাকরিতে এপ্লাই করার আগে অবশ্যই সরকারি চাকরির ওয়েবসাইটে গিয়ে বিজ্ঞপ্তিটি কে যাচাই করে নেবেন যদি কোনো অসুবিধা হয় অবশ্যই আমাদের সঙ্গে কন্টাক করতে পারেন অথবা কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button